জেলা দলে ‘উপেক্ষিত’ ছেলেটি আজ জাতীয় দলে | Chandina Protidin

জেলা দলে ‘উপেক্ষিত’ ছেলেটি আজ জাতীয় দলে

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচের জন্য ঘোষিত বাংলাদেশ দলে চমক হিসেবে এসেছেন তরুণ পেসার ইয়াসিন আরাফাত মিশু। ২০ বছর বয়সী দীর্ঘদেহী এই পেসার প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন মাত্র ৭টি। লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা ৬টি। তবে এর মাঝেই নিজের প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন নোয়াখালীর তরুণ।

লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে দেশের হয়ে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ডটি যেমন ৬ ফুট ১ ইঞ্চি উচ্চতার এই ডানহাতি পেসারের। প্রথম ক্রিকেট অভিষেকেই আছে ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি। অনূর্ধ্ব-১৭ দলে হয়ে অভিষেকে করেন হ্যাটট্রিক। সব মিলে উঠতি এই তারকার ছোট্ট ক্যারিয়ারের বাঁকে বাঁকে সাফল্যের নানা কীর্তি যা তাকে আজ জাতীয় দলে খেলার স্বপ্ন পূরণের দুয়ারে দাঁড় করিয়েছে।

আসছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে সামনে রেখে নির্বাচকেরা এই পেসারকে নিয়ে পরিকল্পনা করছেন। তবে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজাকে আদর্শ মানা ইয়াসিনকে এত দূর আসতে কম সংগ্রাম করতে হয়নি। বিশেষ করে ইনজুরি বারবার বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে ক্যারিয়ারের মোক্ষম সময়গুলোতে।

বিকেএসপিতে তার শুরুর দিনগুলোও ছিল বেশ কষ্টের। তারও আগে যেখান থেকে তার শুরু, সেই জেলা স্কুল হয়ে জেলা দলে সুযোগ পাওয়ার পরও একাদশে উপেক্ষিত থাকার মতো ঘটনাও রয়েছে। সেদিনের সেই কষ্টগুলো কী আজ মনে পড়ে ইয়াসিনের?

নুরুল আমিন ও আনোয়ারা বেগম দম্পতির দ্বিতীয় সন্তান ইয়াসিন। ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন ক্রিকেটার হওয়া, জাতীয় দলে খেলা। যে স্বপ্নের শুরুটা জেলা স্কুলের হয়ে খেলার সময়ই। ভালো খেলেন, তাই জেলা স্কুল থেকে জেলা দলেও সুযোগ পেয়ে যান। গেল বছর লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ৮ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়ার পর এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে ইয়াসিন শুনিয়েছিলেন নিজের ওঠে আসার সেই দিনগুলোর গল্প।

‘স্কুল ক্রিকেট খেলার পর থেকেই আমার ক্রিকেটের নেশা পেয়ে বসে। জেলা পর্যায়ে খেলার চেষ্টা করতাম। দলে সুযোগও পেয়ে যাই। কিন্তু একাদশে ঠাঁই হতো না। দ্বাদশ খেলোয়াড় বা কখনো তাও জুটতো না। তখন নিজের মধ্যে জেদ কাজ করত’ বলেন ইয়াসিন।

তবে ২০১১ সালে ঠিকই বিকেএসপিতে ভর্তির সুযোগ পেয়ে যান ইয়াসিন। বলতে গেলে ক্রিকেটার হয়ে ওঠার ভিতটাও পেয়ে যান তাতে। ইয়াসিনের বিকেএসপিতে ভর্তির পেছনে বড় অবদান তার শিক্ষক মামুনুর রশীদের। যিনি ইয়াসিনকে বিকেএসপিতে ভর্তির জন্য শুধু উৎসাহিতই করেননি, নিজের ভাইয়ের বাসায় রেখে ইয়াসিনকে বিকেএসপিতে ট্রায়াল দেওয়ান।

তবে বিকেএসপির শুরুর দিনগুলোও মোটেও সহজ ছিল না ইয়াসিনের জন্য, ‘বিকেএসপিতে ভর্তি হওয়ার পর আমাকে প্রথমে দিনাজপুর বিকেএসপিতে পাঠানো হয়। ওখানে আমরা যারা ভালো করি তাদেরকে এক বছর পর ঢাকায় সুযোগ দেওয়া হয়। সত্যি বলতে দিনাজপুরে আমাকে খুব সংগ্রাম করতে হয়েছে। আমার শুরুর সময়টা আসলে তেমন ভালো ছিল না। এক বছর পর ঢাকায় আসার পর আমার উন্নতিটা শুরু হয়।’

২০১৭ সালে বিকেএসপির পাঠ চুকান ইয়াসিন। মাঝে খেলেছেন বিভিন্ন বয়স ভিত্তিক দলে। ফার্স্ট ক্লাস অভিষেক হয়ে যায় ২০১৬ সালে। চট্টগ্রাম বিভাগের হয়ে রংপুরের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসেই ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েন। ২০১৩ সালে অনূর্ধ্ব-১৭ দলে অভিষেকেও দুর্দান্ত কীর্তি ইয়াসিনের। কলকাতায় ভারতের বিপক্ষে করেন হ্যাটট্রিক। তিন দিনের ওই ম্যাচটাকেই জীবনের প্রথম বাঁক বদলের মুহূর্ত মানেন এই তারকা।

২০১৭ সালে ইয়াসিনের অভিষেক লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে। প্রিমিয়ার লিগে ব্রাদার্স ইউনিয়নে হয়ে আবাহনীর বিপক্ষে অভিষেক হয় তার। কিন্তু ইনজুরি বাগড়া বসায় পথ চলায়। সে বছর চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে খেলার কথা থাকলেও পারলেন না ইনজুরির কারণে। এমনকি ২০১৮ সালের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডের অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপেও খেলা হয়নি।

তবে মাসখানেক পরই আলোয় এলেন ইয়াসিন। নিজের তৃতীয় লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ খেলতে নেমেই তুলে নিলেন ৮ উইকেট। আবাহনীর বিপক্ষে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের হয়ে সেই কীর্তি গড়েন তিনি। বোলিং ফিগারটা ছিল এমন ৮.১-১-৪০-৮। ক্রিকেট ইতিহাসে যা ১১তম বোলার হিসেবে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে এক ম্যাচেই ৮ উইকেট শিকার।

সেই পারফরম্যান্সে গেল বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের জন্য প্রাথমিক দলে সুযোগ পান ইয়াসিন। সেবার চূড়ান্ত দলে সুযোগ না মিললেন এবার ঠিকই জাতীয় দলে অভিষেকের দুয়ারে ইয়াসিন যার পেছনে ভূমিকা রেখেছে সম্প্রতি ইমার্জিং দলের হয়ে শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দলের বিপক্ষে করা পারফরম্যান্স।

ইয়াসিনের এবার বড় পর্যায়ে নিজেকে মেলে ধরার পালা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Ajker-Comilla

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
চান্দিনা প্রতিদিন ২০১৬-২০১৯

প্রধান সম্পাদক: সাইফুদ্দিন বাপ্পী, নির্বাহী সম্পাদক: সাদেক হোসেন, মোবাইল-০১৬৮১-৯৩৯৭৩৫
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়- চান্দিনা হাইস্কুল মার্কেট (২য় তলা), চান্দিনা থানা রোড, কুমিল্লা।
Email- news.chandinapratidin@gmail.com