ছাত্রলীগ নেতার নেতৃত্বে কুমিল্লার দেবিদ্বারে বৌ-ভাত অনুষ্ঠানে সন্ত্রাসী হামলা | Chandina Protidin

ছাত্রলীগ নেতার নেতৃত্বে কুমিল্লার দেবিদ্বারে বৌ-ভাত অনুষ্ঠানে সন্ত্রাসী হামলা

৭ জনকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লার দেবিদ্বারে বৌ-ভাত অনুষ্ঠানে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে নববধূকে ছিনিয়ে নেওয়ার সময় সাত জনেক আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা।

শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার ভানী ইউনিয়নের সাহারপাড় গ্রামের ইউনুছ মাঝির বাড়িতে ওই ঘটনা ঘটে।

আটককৃতরা হলেন- ময়নামতি উপজেলার নামতলা গ্রামের সুজাত আলীর ছেলে জাফর হোসেন (২০), চান্দিনা উপজেলার এতবার পুর গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে কাউসার আহমেদ(২০), কোতয়ালীর আনন্দসার গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে মোহাম্মদ আলী (২০), বুড়িচংয়ের কোরপাই গ্রামের স্মরণ পালের ছেলে সজীব পাল(১৮), দেবিদ্বারের জাফরাবাদ গ্রামের আবদুল আওয়ালের ছেলে মেহেদি হাসান (১৮), সুরপুর গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে মো. আলম(২২) ও মহারং পশ্চিম পাড়ার জয়নাল উদ্দিন এর ছেলে নাহিদুল ইসলাম (১৮)।

হামলায় নেতৃত্ব ও নির্দেশনা দেওয়া ছাত্রলীগ নেতা মো. ইসমাইল বুড়িচং উপজেলার নিমসার জুনাব আলী ডিগ্রি কলেজ শাখার সভাপতি বলে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে আটক হওয়া সাত সন্ত্রাসী।

Cumilla-news-pic-2স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ১ ফেব্রুয়ারি ইউনুস মাঝি একই উপজেলার সূর্যপুর গ্রামের জাকির ফরাজির মেয়ের সাথে তার ছেলের বিয়ে দেন। বিয়ের সাতদিন পর তার নিজ বাড়িতে ছেলের বৌ-ভাত অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন তিনি। দুপুরে জুম্মার নামাজের সময় বাড়িতে তেমন কোন পুরুষ লোক না থাকার সুযোগে ৩০-৪০ জনের সন্ত্রাসী দল দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে নববধূকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এসময় তাদের বাঁধা দিলে তারা বাড়ির মহিলাদের উপর হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে। পরে মহিলারা পানির সাথে মরিচের গুঁড়া মিশিয়ে সন্ত্রাসীদের চোখে মুখে ছিটিয়ে দিলে অনেকে দৌড়ে পালিয়ে যায় এবং ৭ জনকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ ঘটনায় বর সিদ্দিকুর রহমান জানান, দুই পরিবারের সম্মতিতে আমাদের বিয়ে হয়। কলেজে পড়া অবস্থায় আমার স্ত্রীকে কুপ্রস্তাব দেয় ছাত্রলীগ নেতা ইসমাইল। আমার স্ত্রী ইসমাইলের প্রেমে সাড়া না দিলে তাকে (আমার স্ত্রীকে) দলবল নিয়ে হুমকি দেয় ইসমাইল। তার ভয়ে কলেজে যাওয়া বন্ধ করে দিলে পরিবার মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার জন্য পাত্র খুঁজে। পরে আমরা বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হই।

পরে আমি শ্বশুড় বাড়ি সূত্রে জানতে পারি, বিয়ের কিছুদিন আগে ইসমাইল তার দলবল নিয়ে আমার স্ত্রীর বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে, ভয়-ভীতি দেখায় যেন মেয়েকে কোথাও বিয়ে দেওয়া না হয়। ওই ঘটনায় আমার শ্বশুড় পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে দেবিদ্বার থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে সর্বশেষ শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) আমার বাড়িতে বৌ-ভাতের আয়োজন করলে ইসমাইল তার দলবল নিয়ে আমার বাড়িতে হামলা চালায়।

এ ঘটনায় কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রোশন আলী মাস্টার জানান, এই ঘটনায় আমি খুবই মর্মাহত। এরকম ঘটনা ঘটবে আমি কল্পনাও করতে পারিনি। যারা এই ঘটনার সাথে জড়িত তাদের উপযুক্ত বিচার দাবি করছি।

এ ব্যাপারে দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জানান, আটক ৭ জনকে থানায় নিয়ে আনা হয়েছে। বরপক্ষের লোকজন এসেছেন মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Ajker-Comilla

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
চান্দিনা প্রতিদিন ২০১৬-২০১৯

প্রধান সম্পাদক: সাইফুদ্দিন বাপ্পী, নির্বাহী সম্পাদক: সাদেক হোসেন, মোবাইল-০১৬৮১-৯৩৯৭৩৫
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়- চান্দিনা হাইস্কুল মার্কেট (২য় তলা), চান্দিনা থানা রোড, কুমিল্লা।
Email- news.chandinapratidin@gmail.com