কুমিল্লায় খুঁটির সঙ্গে হাত-পা বেঁধে অমানবিক নির্যাতন!

স্টাফ রিপোর্টার:
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার দক্ষিণ নোয়াগাও গ্রামে এক প্রতিবন্ধীর কিশোর সন্তানকে গাছের খুঁটির সঙ্গে হাত-পা বেঁধে অমানুষিক নির্যাতন করেছে একই গ্রামের কতিপয় যুবক। নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরের নাম সোহাগ। সে ওই গ্রামের মুন্সী বাড়ীর আল-আমীনের পুত্র।

মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগ এনে ঘর থেকে ধরে নিয়ে ওই কিশোরকে নির্যাতন করা হয়। নির্যাতনের ছবি এবং ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে এঘটনার বিচার দাবী ও নিন্দা জানিয়েছেন গ্রামবাসী।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ওই গ্রামের কামারচর মোড়ে জনৈক সজিবের দোকান থেকে একটি মোবাইল ও কিছু নগদ টাকা চুরি হয়। এঘটনার সোহাগ নামে ওই কিশোরকে সন্দেহ করা হয়। পরে গত বুধবার একই গ্রামের মুকবল হোসেনের ছেলে আশিক, মতিন মোল্লার ছেলে রুবেল ও আছমত আলীর ছেলে কামালসহ আরও কয়েকজন মিলে সোহাগকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে একটি গাছের খুঁটির সঙ্গে হাত-পা বেঁধে মারধর করে। সারাদিন সোহাগকে বেঁধে রাখা হয়। ওই সময় কে বা কারা নির্যাতনের ছবি ও ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে রাখে।

ওইদিনই চুরি যাওয়া মোবাইল ফোন একই এলাকার ধনু মিয়ার ছেলে নজরুলের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে নির্যাতনের ঘটনা কাউকে না বলতে এবং কিছুদিন গ্রামের বাইরে থাকার ভয়ভীতি দেখিয়ে সোহাগকে ছেড়ে দেয় ওই যুবকরা। শনিবার নির্যাতনের ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দিলে তা ভাইরাল হয়ে পড়ে।

নির্যাতিত কিশোর সোহাগের বাবা আল-আমীন বলেন, ‘আমি একজন প্রতিবন্ধী অসহায় লোক। ভিক্ষা করে সংসার চালাই। আমার ছেলেকে চুরির মিথ্যা অপবাদ দিয়ে যে নির্যাতন করা হয়েছে আমি এর বিচার চাই।’

মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাদেকুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে আমি অবহিত নই। লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *